প্রতিধ্বনি TV
     

প্রতিধ্বনি টেলিভিশনে দেশের সকল জেলা উপজেলা কলেজ বিশ্ববিদ্যালয় ও বিভাগীয় পর্যায়ে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে। উদ্যোমী পরিশ্রমী সৎ নির্ভীক ও দেশপ্রেমিক সাংবাদিক, যিনি সৃজনশীল মনন ও মানসে লালিত এবং বাঙালি জাতিসত্তা ও জাতীয় চেতনায় সদাজাগ্রত এবং মুক্তিযুদ্ধ ও স্বাধীনতা সংগ্রামের আদর্শ ও প্রেরণায় উজ্জীবিত, এমন প্রগতিশীল ভাব ও ভাবনায় দীক্ষিত সংবাদকর্মীদের নিয়োগ দেওয়া হবে। আগ্রহীদের সর্বনিম্ন এক বছরের অভিজ্ঞতা ও কর্মষ্ঠ হতে হবে। যে কোনো বিষয়ে নূন্যতম স্নাতক অথবা স্নাতক অধ্যয়নরত হতে হবে। ইংরেজি সাংবাদিকতা বা গণযোগাযোগে স্নাতক অথবা অধ্যয়নরত প্রার্থীরা অধিকতর গুরুত্ব পাবেন। আপনার প্রতিষ্ঠানের বিশ্বব্যাপী প্রচারের জন্য বিজ্ঞাপন দিন। যোগাযোগঃ ০১৮৩৭৩৩৮০৬০ (হটলাইন)

নারী আমার মা, নারী আমার বোন, নারী আমার ইজ্জত, সেই নারীর উলঙ্গ ভাস্কর্য্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের গেইটে প্রদর্শন কখনো আধুনিকতা হতে পারেনা।

| 21-04-2019 | 167 পরিদর্শন

ময়মনসিংহ প্রতিনিধি- নারী তুমি এক মমতাময়ী মা,
তোমার পায়ের নিচে মোর জান্নাত পদদললিত,

নারী তুমি মা, তুমি বোন, তুমি সহধর্মীনি, তুমি প্রিয়জন,

বিশ্বকে তুমিই করেছো গর্ভে লালন।
হে নারী তুমি পুরুষের চির আপজন।
বিশ্বে যা কিছু কল্যানকর অর্ধেক তার করিয়াছে নারী অর্ধেক তার নর।

কোথায় আমাদের সুশীল সমাজ, সভ্য সমাজ?

কোথায় আমাদের ধর্ম ব্যবসায়ী ইসলামী সংগঠন গুলো ?
আপনাদের চোখে চশমা আর কানে কি তালা ঝুলানো ?
রাজনীতিক দলের পদ পদবী আর ক্ষমতার চেয়ার নিয়ে টানাহেচড়া না করে, ধর্মকে সুষ্ঠ পথে সঠিক পথে চলার পক্ষে আন্দোলন করুন,

সত্য শুনতে সবাই নারাজ।
জাহেলিয়াতের যুগকে ও হার মানিয়েছে,
এ যুগের কিছু নব্য সুশীল সমাজের মানুষরুপী অমানুষ
যা এই সভ্য সমাজে এবং রাষ্ট্রে কোনো ভাবেই কাম্য নয়
এভাবে একজন নারীকে উলঙ্গ করে নারী সমাজকে কোথায়
দাঁড় করিয়েছেন তা কি এক বার ভেবে দেখেছেন ?

মানবিক তাড়নায় বিবেককে একবার জাগ্রত করুণ
যে নারীর পদতলে আমাদের জান্নাত সেই নারীর
ছবি দিয়ে উলঙ্গ ভাস্কর্য বানিয়ে তাকে আবার একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সামনে বসিয়ে নারীর প্রতি এটি কেমন সম্মান দেখাতে চেয়েছেন ?

নারীর সম্মান রক্ষার্থে সবাই এগিয়ে আসুন
মানবতার ঝড় তুলুন নারী ইজ্জত রক্ষা করুণ।

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী

মাননীয় শিক্ষা মন্ত্রী ও সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকষর্ন করছি।
ময়মনসিংহের মহিলা টিচার্স ট্রেনিং কলেজের সামনে থেকে উলঙ্গ মূর্তি সরানো হোক। নারীদের সম্মান হরণ করে উলঙ্গ ভাস্কর্য্য কখনোই সৌন্দয্যের প্রতীক হতে পারেনা । আশা করি বিষয়টি বিবেচনা করে অতি দ্রুত ব্যবস্হা গ্রহন করবেন বর্তমান সরকার
নারী বান্ধব সরকার, নারীর ক্ষমতায়নে বিশেষ গুরুত্বের বিবেচনায় এ সোনার বাংলায় এই অপসংস্কৃতি থাকতে পারেনা।
অতি দ্রুততার সাথে মূর্তি অপসারণের দাবী জানাচ্ছি।